৫ টাকায় ৫০ পদের ভর্তা!

বাংলা খাবারের নাম আসলেই প্রথমেই আসে ভর্তার কথা। ঝাল ভর্তা দিয়ে আহার মনে এনে দেয় অতুলনীয় তৃপ্তি। শুধু ভাতের সঙ্গেই না, এই ভর্তার স্বাদ আরও নেওয়া যায় পিঠার সঙ্গেও। তাও আবার চিতই পিঠা। রাজধানীর বিভিন্ন প্রান্তে ভ্রাম্যমান পিঠার দোকানে পাওয়া যাচ্ছে ২০ থেকে ৫০ পদের ভর্তার স্বাদ। তাও আবার মাত্র ৫ টাকায়।

ফার্মগেট আনন্দ সিনেমা হলের পেছনে পিঠার দোকান।দোকানের নাম পাগলা পিঠা।  চিতই পিঠার পাশাপাশি আছে পোয়া পিঠা। সাথে আছে ৩২ পদের ভর্তা। হরেক পদের শুটকি, শুকনা মরিচ, রসুন, কাঁচামরিচ, কালিজিরাসহ রয়েছে ৩০টিরও বেশি পদের ভর্তা।

অন্যদিকে সবচেয়ে জনপ্রিয় পিঠার দোকান মিরপুর ১১ নম্বরে। এখানে ভর্তা আছে প্রায় ৫০ রকমের। বিভিন্ন রকম ঝাল শুটকি ভর্তার পাশাপাশি রয়েছে বেগুন ভর্তা, চিংড়ি ভর্তা, সবজি ভর্তাসহ নানাপদ। সাথে আরও পাওয়া যায় পাটিসাপটা এবং ফিরনি। তাই চিতই পিঠা খেয়ে ঝালে লাল হয়ে গেলেও আছে ঝাল নিবারণের ব্যবস্থা। আরও আছে ভাপা পিঠা, ছানামুখি,  তেলের পিঠা ও ভেজা পিঠা।.

আবার একটু ভিন্ন কিছু পেতে যাওয়া যায় বসুন্ধরা সিটির পেছনে। এখানে ঝাল ভর্তা তো আছেই সঙ্গে আছে চিনি এবং ডিম। চাইলে এগুলা দিয়েও চিতই পিঠা খাওয়া যায়। শীত আসছে, তাই পিঠার চাহিদা দিন দিন বাড়ছে। পিঠার থেকে ভর্তার স্বাদ নিতে ব্যস্ত নগরবাসী। তাই তো সন্ধ্যার পর দেখা যায় দোকানের সামনে লাইন দিয়ে গরম পিঠার সাথে ভর্তার স্বাদ নেওয়ার প্রতিযোগিতা, তাও আবার মাত্র ৫ টাকায়।  .

আরও দেখুন

সম্পর্কিত খবর